1. admin@www.shikhatvlive.com : news :
সোমবার, ১৬ মে ২০২২, ০২:২০ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
টেলিভিশন উন্মুক্ত করে দিয়েছি, সবাই কথা বলতে পারেন: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঢাকাসহ দেশের যেসব জায়গায় আজও ঝড়-বৃষ্টি হতে পারে বছরের প্রথম পূর্ণ চন্দ্রগ্রহণ চলছে হাটে কচুর লতি বিক্রি নিয়ে মুখ খুললেন বিশ্ববিদ্যালয় অধ্যাপক নওগাঁ নিয়ামতপুরে এক অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে  অনিয়ম ও দুর্নীতিসহ নিয়োগ জালিয়াতির  অভিযোগ । বিয়ের আশ্বাসে ইউপি সদস্যকে বাড়িতে ডেকে নিয়ে ধর্ষণ রাজশাহীর পবায় মোটরসাইকেল ও মাটিকাটা ট্রাকটরের সংঘর্ষে নিহত তিন মেয়ের সঙ্গে অভিমান করে শিক্ষিকার আত্মহত্যা বেসরকারি এমপিওভুক্ত শিক্ষকদের মাসিক বেতন সরকারি নিয়মে উত্তোলনের ব্যবস্থা চাই। নাটোরে গৃহবধূকে ধর্ষণ ,ধর্ষক গ্রেফতার

রাজশাহী থেকে ঢাকাগামী আন্তঃনগর ট্রেনেই সন্তানের জন্ম

প্রতিবেদকের নাম:
  • প্রকাশিত: শুক্রবার, ৬ মে, ২০২২
  • ৮ ,৫২৫০ বার পড়া হয়েছে

রাজশাহী জেলা প্রতিনিধিঃ

ঈদের ছুটি শেষে রাজশাহী থেকে ঢাকাগামী আন্তঃনগর ‘সিল্কসিটি এক্সপ্রেস’ ট্রেনেই একটি ফুটফুটে ছেলে সন্তানের জন্ম দিলেন এক প্রসূতি মা। শুক্রবার (০৭ মে) দুপুর ১টার দিকে ট্রেনটি টাঙ্গাইলে পৌঁছালে প্রসূতির প্রসব বেদনা ওঠে। পরে ওই ট্রেনের যাত্রী এক নার্স ও অন্য নারীদের সহায়তায় ওই নারীর বাচ্চা প্রসব করানো হয়। বর্তমানে মা ও শিশুকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তবে নবজাতক ও মা দুজনই সুস্থ রয়েছেন বলে হাসপাতালের চিকিৎসরা নিশ্চিত করেছেন।

প্রত্যক্ষদর্শী ও ট্রেনের কর্মকর্তা সূত্রে জানা যায়, নবজাতক জন্ম দেয়া অন্তঃসত্ত্বা ওই নারীর নাম পারুল আক্তার। তিনি রাজশাহী গোদাগাড়ীর তার এক আত্মীয়ের বাড়ি থেকে ঢাকায় ফিরছিলেন। পথিমধ্যেই ট্রেনটি টাঙ্গাইলে পৌঁছালে প্রসব বেদনা শুরু হয় তাঁর। তিনি বিচলিত হয়ে পড়েন। তবে পাশের সিটেই বসা ছিলেন দাউদকান্দির অ্যাপোলো প্লাস হাসপাতালের নার্স আলিফা সুলতানা সীমা। তাঁর প্রচেষ্টায় চলন্ত ট্রেনেই ফুটফুটে ছেলে সন্তান প্রসব করেন পারুল।

বিকাল পৌনে ৩টায় কমলাপুর স্টেশনে নামেন তিনি। তখন খবর পেয়ে স্টেশনে তাকে রিসিভ করেন তার স্বজনরা। এ ছাড়া কমলাপুর স্টেশন প্লাটফর্মে ছুটে আসেন রেলওয়ে হাসপাতালের চিকিৎসক রিপন দাস ও শওকত জামির। পরে মা ও নবজাতককে ঢামেক হাসপাতালে ভর্তি করান তারা।

চিকিৎসক রিপন দাস বলেন, রেলওয়ে কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে আমরা খবর পেয়ে দ্রুত কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনে আসি। পরে মা ও নবজাতককে একটি অ্যাম্বুলেন্সযোগে ঢামেক হাসপাতালে ভর্তির ব্যবস্থা করি। মা ও নবজাতক সুস্থ রয়েছেন।

পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ের মহাব্যবস্থাপক অসীম কুমার তালুকদার বলেন, ‘আমিও শুক্রবার সিল্কসিটি ট্রেনের যাত্রী ছিলাম। তবে ওই প্রসূতি মা বাচ্চা প্রসবের আগেই পথিমধ্যেই আমি নেমে গেছি। যার কারণে ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী আমি হতে পারিনি।’ তিনি বলেন, ‘আমাদের দেশের অনেক মা সন্তান গর্ভধারণের সময়কাল ঠিকমত হিসাব রাখেন না। ভাগ্যক্রমে ট্রেনে একজন নার্স ছিলেন। তিনি প্রসূতির বাচ্চা প্রসবে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন বলে জানতে পেরেছি।’

এর আগে গত ১৬ সেপ্টেম্বর খুলনা থেকে ছেড়ে আসা আন্তঃনগর সাগরদারি এক্সপ্রেসে সাবিনা ইয়াসমিন নামের এক প্রসূতি মা চলন্ত ট্রেনের মধ্যেই পুত্র সন্তান জন্ম দেন। ওইদিনও এক নার্সের সহযোগিতায় ওই প্রসূতি মা ট্রেনটি বাঘার আড়ানি এলাকায় পৌঁছামাত্র এই সন্তান জন্ম দেন। পরে পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ ওই নার্সকে সবংর্ধনা ও পুরস্কৃত করেন। এছাড়া ওই নবজাতকের আজীবন ট্রেন ভ্রমণ ফ্রি করে দেন।

 

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আরো সংবাদ পড়ুন

ওয়েবসাইট নকশা প্রযুক্তি সহায়তায়: ইয়োলো হোস্ট

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত