1. admin@www.shikhatvlive.com : news :
বৃহস্পতিবার, ১৯ মে ২০২২, ০৯:০৩ পূর্বাহ্ন

ভাষা সংগ্রামে দেশের সব মানুষ প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে জড়িত ছিলেন: প্রধানমন্ত্রী

প্রতিবেদকের নাম:
  • প্রকাশিত: রবিবার, ২০ ফেব্রুয়ারী, ২০২২
  • ৩১ ,৫২৫০ বার পড়া হয়েছে

 

নিজস্ব প্রতিবেদক

যে কোনো অর্জন অনেক আত্মত্যাগের বিনিময়ে আসে। সেই পথেই ভাষার অধিকার ও স্বাধীনতা আমরা অর্জন করেছি। এটা আমাদের জন্য একটা বিরাট পাওয়া বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, ‘৫২ সালের ভাষার জন্য আন্দোলনের পর ৫৬ সালে ২১ ফেব্রুয়ারিকে শহীদ দিবস হিসেবে ঘোষণা করে আওয়ামী লীগ। ওই বছর শহীদ মিনার নির্মাণের প্রকল্প ও ভাষা শহীদদের সম্মান দেওয়ার বিষয়টিও আওয়ামী লীগ করেছিল। সেই ধারাবাহিকতা আজকের ২১ ফেব্রুয়ারি শুধু বাংলাদেশ না, বিশ্বব্যাপী পালন করা হচ্ছে। এই স্বীকৃতির মর্যাদার দিকে আমাদের সবাইকে বিশেষভাবে নজর দিতে হবে।’ ভাষা আন্দোলনে শহীদদের স্মরণে বিভিন্ন ক্ষেত্রে বিশেষ অবদানের স্বীকৃতি হিসেবে রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে দেশবরেণ্য ২৪ বিশিষ্টজনকে একুশে পদক দেওয়া হয়েছে। রোববার (২০ ফেব্রুয়ারি) সকাল ১০টায় সেই অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে ভার্চুয়ালি অংশ নিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ কথা বলেন। বক্তব্যের শুরুতেই ভাষা শহীদ, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং জাতীয় চার নেতার প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘পাকিস্তান শাসকের লক্ষ্যই ছিল আমাদের শূন্য করে দেওয়া। তাই সবার আগে তারা ভাষার ওপর আঘাত হেনেছিল। কিন্তু দেশের মানুষের সংগ্রামে সেটি তারা কেড়ে নিতে পারেনি।’ ‘ভাষা সংগ্রামে দেশের সব মানুষ প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে জড়িত ছিলেন। তাই তাদের খুঁজে বের করার পাশাপাশি তাদের সম্মানিত করা আমাদের দায়িত্ব। তবে, আমরা সবাইকে সম্মানিত করতে পারছি না। এর মধ্যে অনেকেই হারিয়ে যাচ্ছেন, আমরা তাদেরও খুঁজে বের করার চেষ্টা করছি। আমরা ইতিহাস বিকৃতির হাত থেকে দেশকে মুক্ত করতে চাই।’ জাতির পিতার অবদানেই আজকে দেশের মানুষ বিশ্বের বুকে মাথা তুলে দাঁড়াতে পেরেছেন বলেও জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। দেশের অর্জন নিয়ে গর্ব করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘বর্তমানে বাংলাদেশ উন্নয়নশীল দেশ হিসেবে বিশ্বে আত্মপ্রকাশ করেছে। এক সময় এই দেশকে সবাই হেয় করে দেখত। আজকে এটুকু বলতে পারি, বাংলাদেশ সারা বিশ্বে একটা মর্যাদা অর্জন করেছে।’ এ সময় কিছু্টা আক্ষেপ নিয়ে তিনি বলেন, ‘কিন্তু এমন অর্জন আমরা অনেক আগেই করতে পারতাম। যদি ৭৫ সালে নির্মম হত্যাযজ্ঞ না হতো। সে সময় দেশে ফিরতে না পেরে বিদেশে থেকে শোককে শক্তিতে পরিণত করে দেশকে বিশ্ব দরবারে পরিচিতি করানোর প্রত্যয় করেছিলাম। ইচ্ছা ছিল দেশে ফিরে মানুষের ভাগ্য বদলানোর কাজ করব। আমরা যে বিজয়ী জাতি সেই বিজয়ী জাতি হিসেবে যেন বিশ্ব দরবারে মাথা উঁচু করে চলতে পারি। আজকে সে ইচ্ছা আজকে পূরণ হয়েছে।’ বর্তমান সরকারের কাজের বর্ণনা দিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ‘আজকে তৃণমূলের মানুষের ভাগ্য বদলাতে কাজ করে যাচ্ছি। পাশাপাশি আমরা চাই অর্থনৈতিকভাবে সবাই স্বাবলম্বী হবে। আমি বিশ্বাস করি দেশ এগিয়ে যাচ্ছে, আমরা সেই অগ্রযাত্রায় অনেক দূর এগিয়ে গিয়েছি।’ এ সময় নতুন প্রজন্মকে দেশের কল্যাণে কাজ করতেও আহ্বান জানান প্রধানমন্ত্রী

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আরো সংবাদ পড়ুন

ওয়েবসাইট নকশা প্রযুক্তি সহায়তায়: ইয়োলো হোস্ট

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত