1. admin@www.shikhatvlive.com : news :
বৃহস্পতিবার, ১৯ মে ২০২২, ০৯:০৭ পূর্বাহ্ন

গৌরনদীর বিসিআইসি’র সরকারি সার পাচারের ঘটনায় এলাকায় তোলপার

প্রতিবেদকের নাম:
  • প্রকাশিত: শনিবার, ১২ ফেব্রুয়ারী, ২০২২
  • ৩৪ ,৫২৫০ বার পড়া হয়েছে

 

মোঃ ফারহান হোসেন,গৌরনদী প্রতিনিধিঃ
গৌরনদী উপজেলার টরকী বন্দরে গত ৪ ফেব্রুয়ারী বিসিআইসি’র সার ডিলার শিশির কুন্ডু’র বিরুদ্ধে সরকারি বিধিমালা উপেক্ষা করে সরকারের ভূর্তুকি সার পাচার করে কালো বাজারে বিক্রির করার অভিযোগ পাওয়া গেলে। সার পাচারকালে ২/১ জন সংবাদ কর্মী ছবি তুললে ঘটনাটি জানাজানি হলে বিষয়টি ধামাচাপা দেওয়ার জন্য দৌড়ঝাপ শুরু করেন সার ব্যবসায়ী। উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানাগেছে, সরকার সার বিক্রির জন্য গৌরনদী উপজেলার ৭টি ইউনিয়ন ও ১টি পৌরসভায় বিসিআইসি’র ১০ জন সার ডিলার রয়েছে। এরমধ্যে খাঞ্জাপুর ইউনিয়নে সার বিক্রির জন্য মেসার্স শিশির কুন্ডু, বার্থী ইউনিয়নে মেসার্স মনির ব্রাদার্স, গৌরনদী পৌরসভায় সার বিক্রির জন্য মেসার্স গন্ডেশ^রী ভান্ডার নামে তিনটি সার ডিলার টরকী বন্দরে রয়েছে। এছাড়া খুচরা সার বিক্রির জন্য উপজেলা টরকী বন্দরসহ বিভিন্ন হাট-বাজারে লাইসেন্সকৃত আরো ৭২টি সারের দোকান রয়েছে। স্থাণীয়দের সাথে আলাপ করে জানা গেছে, চলতি ইরি-বোরো মৌসুমে অধিক মুনাফা লাভের জন্য টরকী বন্দরের বিসিআইস’র সার ডিলারের মালিকরা অধিক মুনাফা লাভের জন্য সার পাচার করে কালকিনি, বাবুগঞ্জ, মুলাদী উপজেলার বিভিন্ন হাট-বাজার এবং ওই এলাকার কৃষকদের কাছে বিক্রি করার অভিযোগ রয়েছে। এতে ইউনিয়নের নামে বরাদ্দকৃত সার স্ব স্ব ইউনিয়নের কৃষকরা ন্যায্য মূল্যে সার ক্রয় থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জাানয়, গত ৪ ফেব্রুয়ারি (শুক্রবার) উপজেলার টরকী বন্দরের সারের ডিলার শিশির কুন্ডুর গোডাউন থেকে ইউরিয়া সারের অর্ধ শতাধিক বস্তা পাচার করে কালো বাজারে বিক্রিকৃত সার টরকী বন্দর ট্রলার ঘাটের ২টি ট্রলারে তোলা হয়। ওই সার পাশ্ববর্তী কালকিনি, বাবুগঞ্জ ও মুলাদী উপজেলার হাট-বাজার ও বিভিন্ন এলাকা থেকে টরকী বন্দর ট্রলার ঘাটে আসা ট্রলার যোগে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে এমন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে স্থাণীয়রা টরকী বন্দরের ট্রলার ঘাটে গিয়ে ঘটনার সত্যতা দেখতে পান । এ সময় এমভি আব্বাস ট্রলারের চালক জানান, শিশির কুন্ডু’র টরকী বন্দরস্থ গোডাউন থেকে আসা ৩০ বস্তা সার পার্শ^বর্তী মুলাদী উপজেলায় নিয়ে যাওয়া হবে। অপর ট্রলার চালক জাকির হোসেন জানান, শিশির কুন্ডু’র গোডাউন থেকে তার ট্রলারে ইউরিয়া সার কালকিনি উপজেলার তালতলা নামকস্থানে নিয়ে যাওয়া হবে। এদিকে, উপজেলার সারের ডিলার শিশির কুন্ডু’র নামে টিসিবির পণ্যেরর ডিলার রয়েছে। একই সাথে শিশির কুন্ডু’র বিরুদ্ধে টিসিবির পণ্য কালো বাজারে বিক্রির অভিযোগও উঠেছে।
অভিযোগ অস্বীকার করে সার ডিলার শিশির কুন্ডু বলেন, পৌরসভার ২/১ জন বোরো চাষি দাবি করে সার কিনে যদি কালকিনি উপজেলার চাষিরা নিয়ে যায়, তা হলে আমার কি করার আছে?
উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মামুনুর রহমান জানান, যে ডিলারের নামে যে ইউনিয়নের বরাদ্দকৃত সার ওই ইউনিয়নেই বিক্রি করতে হবে। কোন ডিলারের বরাদ্দকৃত সার অন্য উপজেলা ও ইউনিয়নে বিক্রি করতে পারবে না। সরকারি বিধিমালা অমান্য করে কোন ডিলার অন্য উপজেলায় কিংবা ইউনিয়নে সার বিক্রি করলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। শিশির কুন্ডুর ঘটনাটি শোনার পর ইউএনও’কে বিষয়টি অবহিত করেছি।
উপজেলা সার ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি ও ইউএনও বিপিন চন্দ্র বিশ^াস জানান, বিষয়টি তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
কিন্তু ঘটনার ৮ দিন হয়ে গেলেও এখন পর্যন্ত প্রশাসন থেকে বিসিআইসি’র সার ডিলার শিশির কুন্ডু’র বিরুদ্ধে কোন ধরনের ব্যবস্থ্যা গ্রহণ করা হয়নি পুর বিষয় টি নিয়ে জনসাধরন ও কৃষকদের মধ্যে একটি মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখে যাচ্ছে।##

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আরো সংবাদ পড়ুন

ওয়েবসাইট নকশা প্রযুক্তি সহায়তায়: ইয়োলো হোস্ট

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত