1. admin@www.shikhatvlive.com : news :
সোমবার, ১৬ মে ২০২২, ০২:২৭ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
টেলিভিশন উন্মুক্ত করে দিয়েছি, সবাই কথা বলতে পারেন: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঢাকাসহ দেশের যেসব জায়গায় আজও ঝড়-বৃষ্টি হতে পারে বছরের প্রথম পূর্ণ চন্দ্রগ্রহণ চলছে হাটে কচুর লতি বিক্রি নিয়ে মুখ খুললেন বিশ্ববিদ্যালয় অধ্যাপক নওগাঁ নিয়ামতপুরে এক অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে  অনিয়ম ও দুর্নীতিসহ নিয়োগ জালিয়াতির  অভিযোগ । বিয়ের আশ্বাসে ইউপি সদস্যকে বাড়িতে ডেকে নিয়ে ধর্ষণ রাজশাহীর পবায় মোটরসাইকেল ও মাটিকাটা ট্রাকটরের সংঘর্ষে নিহত তিন মেয়ের সঙ্গে অভিমান করে শিক্ষিকার আত্মহত্যা বেসরকারি এমপিওভুক্ত শিক্ষকদের মাসিক বেতন সরকারি নিয়মে উত্তোলনের ব্যবস্থা চাই। নাটোরে গৃহবধূকে ধর্ষণ ,ধর্ষক গ্রেফতার

রকেট তৈরি করল ময়মনসিংহের একদল প্রকৌশলী, উৎক্ষেপণের অপেক্ষা

প্রতিবেদকের নাম:
  • প্রকাশিত: শনিবার, ৫ ফেব্রুয়ারী, ২০২২
  • ৯৮ ,৫২৫০ বার পড়া হয়েছে

শিক্ষা টিভি লাইভ ডেস্ক

গবেষণার মাধ্যমে নিজেদের তৈরি রকেটের ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে প্রকাশ করে আলোচনায় এসেছে ময়মনসিংহ ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজের (এমইসি) একদল প্রাক্তন শিক্ষার্থী। তরুণ প্রকৌশলীরা তৈরি করেছেন প্রোটোটাইপের চারটি রকেট। যার নাম দেওয়া হয়েছে ধূমকেতু-০.১ এবং ধূমকেতু-০.২। তবে এসব রকেট উৎক্ষেপণযোগ্য কিনা, তা পরীক্ষা করা হয়নি। এ জন্য সরকারের সহায়তা চাইছেন এই প্রকৌশলীরা।

প্রকৌশলী দলটির দাবি, এটি দিয়ে সম্প্রচার, যোগাযোগ, আবহাওয়া ও জলবায়ু পরিবর্তনসহ নানা তথ্য সংগ্রহ করা হবে। পাশাপাশি প্রকৃতি সুরক্ষা ও খনিজ সম্পদ অনুসন্ধানের বড় মাধ্যম হিসেবেও কাজ করবে এই রকেট।

২০ সদস্যের এ প্রকৌশলী দলটির নেতৃত্বে রয়েছেন ময়মনসিংহ ইঞ্জিনিয়ার কলেজের ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের শিক্ষার্থী নাহিয়ান আল রহমান। তার বাড়ি গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলায়। এই প্রকৌশলীরা ২০১৯ সালে কাজ শুরু করে তিন বছরের গবেষণায় প্রাথমিক সফলতার চূড়ায় বলে দাবি করেছেন। আকাশে উৎক্ষেপণের জন্য প্রথম ধাপ সম্পন্ন হওয়া ধূমকেতু-০.১ রকেটটি রাখা হয়েছে ময়মনসিংহ ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ মাঠে। অপেক্ষা শুধু সরকারের অনুমতি।

জানা গেছে, ছোটবেলা থেকেই বিমান ও রকেট তৈরির নেশা ছিল নাহিয়ান আল রহমানের। সেসময় এই স্বপ্নের ডানা না মেললেও ময়মনসিংহ ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজে ভর্তি হওয়ার পর তার স্বপ্ন ডানা মেলতে শুরু করে। সহপাঠী বন্ধু নিয়ামুল ইসলামের কাছে তার স্বপ্নের কথা জানান নাহিয়ান। এতে সায় দেন নিয়ামুলও। সহযোগিতায় এগিয়ে আসে সাইদুর, নাদিম, লিয়ান, আবরার, রিজু, বিন্দু, নাইম, আশরাফসহ অনেকেই। শুরু হয় রকেট তৈরির গল্প।

তখন সময় ২০১২ সাল। এরপর তারা দেশ-বিদেশের পরিচিত বড় ভাই-বন্ধুদের কাছ থেকে রকেট সংক্রান্ত বই সংগ্রহ শুরু করেন। এভাবে তারা প্রায় চার শতাধিক বই গবেষণা করে প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতি সংগ্রহ শুরু করেন। কিন্তু মাঝ পথে এসে টাকার অভাবে ছিটকে পড়েন তারা। তবে থেমে যাননি এই স্বপ্নবাজ তরুণরা।

এরপর ২০১৯ সালে ফের ব্যক্তিগতভাবে টাকা সংগ্রহ করে ২০ জনের দল নিয়ে শুরু হয় রকেট তৈরির কাজ। এভাবেই ২০২১ সালের শেষ দিকে এসে তারা রকেট তৈরির কাজ শেষ করেন।

উদ্যোক্তারা বলছেন, এখন প্রয়োজন সরকারের সহযোগিতা ও অনুমতি। তবেই এই স্বপ্নের রকেট আকাশে উৎক্ষেপণ করা সম্ভব হবে।

রকেট তৈরির ব্যাপারে দলনেতা নাহিয়ান বলেন, রকেটের জন্য প্রাথমিকভাবে তরল জ্বালানির ইঞ্জিন ডিজাইন করা হয়। কিন্তু পরবর্তীতে অর্থাভাবে ও করোনা মহামারির কারণে তরল অক্সিজেনের দাম বৃদ্ধি পাওয়ায় প্রজেক্ট চালানো কষ্টকর হয়ে পড়ে। ফলে বিকল্প হিসেবে সলিড ফুয়েলের ৪০০ নিউটন ও ১৫০ নিউটন থ্রাস্টের দুটি ইঞ্জিনের প্রোটোটাইপ তৈরি করা হয় এবং রকেটের আকৃতি কমানো হয়। বর্তমানে ৬ ফুটের দুটি ও ১০ ফুট উচ্চতার আরও দুটি প্রোটোটাইপ রকেট উৎক্ষেপণযোগ্য করে প্রস্তুত করা হয়েছে। ১৫০ নিউটন ফোর্সের ৬ ফুট উচ্চতার দুটি রকেটের রেঞ্জ প্রায় ২০ কিলোমিটার এবং ৪০০ নিউটন ফোর্সের ১০ ফুট উচ্চতার অন্য দুটি রকেটের রেঞ্জ প্রায় ৫০ কিলোমিটার।

তিনি আরও বলেন, স্বপ্ন পূরণের প্রথম ধাপে আছি। যেদিন সরকারের অনুমতি নিয়ে এই রকেট উৎক্ষেপণ করতে পারব, সেদিন এই স্বপ্ন সফলতা পাবে। তবে স্বপ্ন শতভাগ স্বার্থক হবে যদি এই রকেট উৎক্ষেপণের পর সফল ভাবে ভূপৃষ্ঠে নামাতে পারি। এজন্য সরকারের সহযোগিতাটাই মুখ্য। সেই সঙ্গে বাংলার আকাশে স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণের মাধ্যমে আমরা এই স্বপ্নের পূর্ণতা দেখতে চাই।

যে ল্যাবে টানা তিন বছর গবেষণা চলেছে, সেই ল্যাবটির নাম আলফা সায়েন্স ল্যাব। ময়মনসিংহ ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ সংলগ্ন ওই ল্যাবে যাতায়াত ছিল ময়মনিসংহ সিটি করপোরেশনের কম্পিউটার ট্রেনিং সেন্টারের কো-অর্ডিনেটর এম এ ওয়ারেছ বাবুর।

তিনি জানান, রকেটটি উৎক্ষেপণের জন্য প্রয়োজনীয় সব ধরনের সরকারি সহায়তা কামনা করে সহযোগিতার কথা জানিয়েছেন সিটি মেয়র ইকরামুল হক টিটু

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আরো সংবাদ পড়ুন

ওয়েবসাইট নকশা প্রযুক্তি সহায়তায়: ইয়োলো হোস্ট

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত