1. admin@www.shikhatvlive.com : news :
বুধবার, ২৬ জানুয়ারী ২০২২, ০১:৪৬ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :

বাগমারায় যৌতুকের দাবিতে স্ত্রীকে পিটিয়ে যখম করেছেন এক স্কুল শিক্ষক, স্বামী সহ গ্রেফতার ৩

প্রতিবেদকের নাম:
  • প্রকাশিত: মঙ্গলবার, ৭ ডিসেম্বর, ২০২১
  • ৭৩ ,৫২৫০ বার পড়া হয়েছে

রাজশাহী জেলা প্রতিনিধি —
রাজশাহীর বাগমারা উপজেলার গোবিন্দ পাড়া ইউনিয়নে যৌতুকের কারনে এক গৃহবধূকে পিটিয়ে যখম করেছে তার পাষন্ড স্বামী। স্ত্রীর মামলায় স্বামী সহ তিনজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গ্রেফতার কৃত আসামিরা হলো চাঁইসারা গ্রামের মৃত ধীরেন্দ্রনাথের ছেলে মাষ্টার শ্রী পরিমল কুমার (৩৮), তার বড় ভাই কমল সরকার (৪৫), এবং ভাবি লক্ষী রাণী (৩৫)। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে নির্যাতিত গৃহবধু কৃষ্ণা রাণী গত ২২/০৬/২০২১ তারিখে নওগাঁ বিজ্ঞ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুনাল-০২এ মামলা করেছেন যার নম্বর ১১৯/২০২১ইং, বিজ্ঞ আদালত আসামি গণের বিরুদ্ধে ওয়ারেন্ট ইস্যু করলে গতকাল রবিবার রাত ১০টার দিকে আসামী তিন জনকে তাদের নিজ বাড়ি থেকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

বাদীর জবানবন্ধি ও মামলার অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, নওগাঁ জেলার বদলগাছি উপজেলার ভাতশাইল গ্রামের শ্রী অখিল চন্দ্র মন্ডলের মেয়ে কৃষ্ণা রাণীকে, রাজশাহী বাগমারা উপজেলার গোবিন্দ পাড়া ইউনিয়নের চাঁইসারা গ্রামের মৃত ধীরেন চন্দ্র মন্ডলের ছেলে মাষ্টার শ্রী পরিমল কুমার আনুমানিক ০১ বছর আগে হিন্দু ধর্মের বিধান অনুযায়ী বিবাহ করেন। বিবাহের সময় গৃহবধুর বাবা – মা কন্যার সুখের জন্য প্রায় ২০ লক্ষ টাকার গৃহ সজ্জা সামগ্রী দিয়ে বিবাহ কাজ সম্পন্ন করেন। বিবাহের কিছুদিন যেতে না যেতেই কৃষ্ণা রাণী জানতে পারে যে স্বামী পরিমল তার আপন ভাবির সাথে পরকিয়া করে। এই কাজে বাধা দিলে তাদের মধ্যে বিবাদ সৃষ্টি হয়। তারা দুজনে মিলেই কৃষ্ণা রাণীকে নানা ভাবে মানষিক নির্য াতন করতে থাকে । এক সময় পরিমল কৃষ্ণা রাণীকে অতিরিক্ত আরো ১০ লক্ষ টাকা, তার বাবার কাছ থেকে এনে দেওয়ার জন্য চাপ দিতে থাকে। এমন নানা অজুহাতে পরিমল কুমার তার ভাই ও ভাবির প্ররোচনায় তার স্ত্রীকে পারপিট গাল মন্দ করে থাকে। কিন্তু স্বামীর সংসার যেন না ভাংগে এ জন্য নানা অত্যাচার সহ্য করে আসছিল কৃষ্ণা রাণী। ঘটনার দিন গত ১৯/০৬/২০২১ ইং কৃষ্ণা রাণী তার বাবার বাড়ি বদল গাছিতে অবস্থান করছিল। আনুমানিক বেলা ১২ টার দিকে পূর্বের কথার জের অনুযায়ী আসামি গণ কৃষ্ণা রাণীর বাবার বাড়িতে উপস্থিত হয়ে মাষ্টার পরিমল তার স্ত্রীর কাছে ১০ লক্ষ টাকা দাবি করে। উত্তরে কৃষ্ণা রাণী সাফ জানিয়ে দেয় আমি আমার বাবার কাছে টাকা চাইতে পারবোন। এ সময় পরিমল ক্ষিপ্ত হয়ে নানা অকথ্য ভাষায় গালি গালাজ করতে থাকে। এক সময় সে আরো রাগান্নিত হয়ে স্ত্রীর চুলের মুটি ধরে এলাপাতাড়ি ভাবে মারতে থাকে। কৃষ্ণা মাটিতে পড়ে গিয়ে চিৎকার করতে থাকলে তার বাবা মা ও প্রতিবেশি স্বাক্ষীরা এগিয়ে আসে এবং তাকে উদ্ধার করে সি,এন,জি যোগে বদল গাছী স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ভর্তী করে দেয়। চিকিৎসার পর গত ২২/০৬/২০২১ইং তারিখ কৃষ্ণা রাণী নওগাঁ বিজ্ঞ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুনাল-০২এ স্বামীর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে।
পরিমল রমজানপাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক। এ বিষয়ে কথা হলে পরিমলের স্কুলের প্রধান শিক্ষিকা মোছা: ফাহিমা সুলতানা বলেন, পরিমলের গ্রেফতারের খবর আমার জানা নাই। পরিমল আজ স্কুলে আসেননি এবং ছুটিও নেননি। তবে বেশ কিছু দিন যাবৎ তাকে অস্বাভাবিক আচরণ করতে দেখা গেছে।
এ ব্যাপারে হাট গাঙ্গোপাড়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের এস,আই সইবুর রহমান বলেন, নওগাঁ বিজ্ঞ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুনাল-০২এর নির্দেশে ওযারেন্ট ভুক্ত আসামি তিনজনকে তাদের বাড়ি থেকে আমি গ্রেফতার করেছি। আজ সমবার তাদেরকে আদালতের মাধ্যম জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

 

 

 

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন

ওয়েবসাইট নকশা প্রযুক্তি সহায়তায়: ইয়োলো হোস্ট

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত