1. shikhatvlive@gmail.com : Shikha TV Live :
মঙ্গলবার, ০৩ অগাস্ট ২০২১, ১১:৩৪ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বরাবর এমপিওভুক্ত শিক্ষক মোকাররম হোসেন এর আবেগঘন খোলা চিঠি বগুড়ায় ‘বঙ্গবন্ধু মাচাং’ উদ্বোধন করায় যুবলীগ নেতা বহিষ্কার গফরগাঁওয়ে করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বেড়েই চলছে তবে নেই কোন সচেতনতা। মেয়াদ শেষে অব্যবহৃত ডাটা ব্যবহারকারীকে ফেরত দিতে ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার এর নির্দেশ শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের টিকা নিতে উদ্বুদ্ধকরণে নির্দেশনা বাংলাদেশ সফর স্থগিত করল ইংল্যান্ড ঠাকুরগাঁওয়ে ৩ কেজি গাঁজা উদ্ধার ও ১ জনকে আটক ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে ২ মাস বিনাশ্রমে কারাদণ্ড প্রদান করেন । ঠাকুরগাঁওয়ে বালিয়াডাঙ্গীতে মসজিদ উন্নয়নের জন্য ৫০ (পঞ্চাশ হাজার)টাকা অনুদান দিলেন — এমপি পুত্র মাজহারুল ইসলাম সুজন । নাটোর লালপুরে লকডাউনের ১১তম দিনে ৪ ব্যাক্তিকে জরিমানা বানিয়াচংয় প্রত্নতত্ত্ব সম্পদে ভরপুর, তবে নেই কোন রক্ষণাবেক্ষণ।। গোপালগঞ্জে মোটরসাইকেল চোর চক্রের ৪ সদস্য গ্রেফতার

আমতলী ও তালতলীর সড়কে খানাখন্দ প্রায় দুই লক্ষাধিক মানুষের দূর্ভোগ

প্রতিবেদকের নাম:
  • প্রকাশিত: মঙ্গলবার, ৬ জুলাই, ২০২১
  • ৭০ ৫০০০ বার পড়া হয়েছে

শিক্ষা টিভি লাইভ ডেস্ক

বরগুনার আমতলী ও তালতলীর সড়কের ১২ কিলোমিটার সড়ক খাদে পরিনত হয়েছে। হাজারো খানাখন্দের সড়কে দুই উপজেলার অন্ততঃ দুই লক্ষ মানুষের দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। গত এক বছর ধরে সড়কে ভারী যানবাহন ও পরিবহন বাস চলাচল বন্ধ রয়েছে। দ্রæত সড়ক সংস্কারের দাবী জানিয়েছেন ভুক্তভোগীরা।

জানাগেছে, ১৯৮৮ সালে তালতলী উপজেলা শহরের যোগাযোগের একমাত্র মাধ্যম তালতলী সড়ক নির্মাণের উদ্যোগ নেন আমতলী উপজেলা স্থানীয় সরকার প্রকৌশল বিভাগ। মানিকঝুড়ি থেকে সোনাকাটা পর্যন্ত ৪০ কিলোমিটার সড়ক। ওই বছর মানিকঝুড়ি থেকে কচুপাত্রা পর্যন্ত ১২ কিলোমিটার সড়ক স্থানীয় সরকার প্রকৌশল বিভাগ নির্মাণ করে। ২০০৩ সালে কচুপাত্রা থেকে সোনাকাটা পর্যন্ত ২৮ কিলোমিটার সড়ক হেরিনবন করা হয়। ২০০৮ সালে ওই সড়কটি পাকাকরণ করা হয়। ভেঙ্গে যাওয়ায় ২০১৬ সালে ওই সড়কটি সংস্কার করা হয়। অভিযোগ রয়েছে সড়ক সংস্কারে ঠিকাদার নিম্নমানের নির্মাণ সামগ্রী দিয়ে কাজ করে। এতে সড়ক সংস্কারের তিন বছরের মাথায় ওই সড়কটি খানাখন্দে পরিনত হয়।

এদিকে মানিকঝুড়ি থেকে কচুপাত্রা সড়কটি ২০১৯ সালে সংস্কার করে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল বিভাগ। সড়ক সংস্কারের এক বছরের মাথায় ১২ কিলোমিটার সড়ক খানাখন্দে ভরে ঢোবায় পরিনত হয়। বর্তমানে সড়কটি বেহাল দশায় পড়ে আছে। বৃষ্টি এলেই সড়কের খানাখন্দ পানি জমে মিনি পুকুরে পরিনত হয়। ওই সড়ক দিয়ে আমতলী ও তালতলী উপজেলার দুই লক্ষাধিক মানুষ, ঢাকা ও তালতলীগামী পরিবহন বাস, তালতলী আইসোটেক তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রের কাভার ভ্যান, ট্রাক, প্রাইভেটকার, মাহেন্দ্র, ব্যাটারী চালিত অটোরিক্সা ও মোটর সাইকেলসহ সহস্রাধীক গাড়ী চলাচল করে। এতে দূর্ভোগে পরেছে দুই উপজেলার দুই লক্ষাধীক মানুষ ও যানবাহন। সড়ক দিয়ে চলাচল করতে মানুষের সীমাহীন দূর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। বেহাল সড়কের কারনে গত এক বছর ধরে পরিবহন গাড়ী চলাচল বন্ধ রয়েছে। স্থানীয়রা অভিযোগ করেন গত দুই বছর ধরে সড়কটি সংস্কারের ছাড়া অভিভাবকহীন অবস্থায় পড়ে আছে। কেউ সড়কটি সংস্কারের উদ্যোগ নিচ্ছে না। দ্রুত সড়ক সংস্কার করে চলাচলের পথ সুগম করার দাবী জানিয়েছেন এলাকাবাসী।

সরেজমিনে ঘুরে দেখাগেছে, মানিকঝুড়ি থেকে কচুপাত্রা বীজ পর্যন্ত ১২ কিলোমিটার সড়কের প্রতি ১০ মিটার অন্ততঃ বড় বড় খানাখন্দে পরিপূর্ণ। গর্তে পানি জমে ডোবায় পরিনত হয়েছে। অনেক স্থানে ছোট গাড়ী আটকে যাচ্ছে। হাজারো খানাখন্দে ভরে গেছে সড়কটি। সড়ক নয় যেন মিনি পুকুর। প্রায়ই সড়কে দূর্ঘটনা হচ্ছে। খানাখন্দে ভয়ে সড়কটি মরন ফাঁদে পরিনত হয়েছে। গত দুই বছর ধরে সড়কটি বেহাল অবস্থায় পড়ে থাকলেও সংস্কারের উদ্যোগ নিচ্ছেন না সংশ্লিষ্টরা। বর্তমানে ওই সড়কে যানবাহন চলাচল বন্ধ রয়েছে।

আড়পাঙ্গাশিয়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সভাপতি মোঃ মাহবুবুর বহমান জাফর বিশ্বাস বলেন, দুই বছর ধরে সড়ক সংস্কার কাজ বন্ধ। এতে দূর্ভোগে পরেছে দুই উপজেলার অন্ততঃ দুই লক্ষ মানুষ। মানুষের দূর্ভোগের শেষ নেই। সড়কে হাজারো খানাখন্দ। দ্রুত সড়ক সংস্কার করে যানবাহন চলাচলের পথ সুগম করার দাবী জানান তিনি।

তারিকাটা গ্রামের মোঃ রাজিব মিয়া বলেন, সড়ক নয় যেন মরণ ফাঁদ। সব কিছুর উন্নয়ন হলেও এই সড়কের কোন উন্নয়ন নেই। দ্রুত সড়ক সংস্কারের দাবী জানাই।

একই গ্রামের কৃষক মামুন ও বশির বলেন, মোরা আর কি কমু? মোনে হয় মোরা এই দ্যাশের মানু না। এমপি, চেয়ারম্যান ও মেম্বর সবার সব চলে মোগো রাস্তার কাম চলে না। মোরা যে কত কষ্ট হরি হ্যা আল্লাই জানে। মোগো রাস্তাডারে একটু পাহা হইরা দেন।

বাস গাড়ী চালক মিজানুর রহমান বলেন, সড়কের বেহাল দশার কারনে গত এক বছর ধরে বাস চলাচল বন্ধ রয়েছে। দ্রুত সড়ক সংস্কারের দাবী জানাই।

আমতলী উপজেলা প্রকৌশলী মোঃ আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, সড়ক সংস্কারের জন্য বরগুনা নির্বাহী প্রকৌশলীর দফতরে প্রকল্প জমা দিয়েছি। প্রকল্প অনুমোদন হলে দ্রুত সড়ক সংস্কার কাজ শুরু করবো। বরগুনা এলজিইডির নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ ফোরকান খাঁন বলেন, সড়কের প্রাক্কলন তৈরি করে এলজিইডির প্রধান কার্যালয়ে পাঠানো হয়েছে। অনুমোদন পেলে কাজ শুরু করা হবে।

শিক্ষা টিভি লাইভ এর সংবাদ শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন

ওয়েবসাইট ডিজাইন প্রযুক্তি সহায়তায়: ইয়োলো হোস্ট

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত